মেনু নির্বাচন করুন

শুখনো মৌসুমে কুশিয়ারা নদী খেয়া পাড়াপারের দৃশ্য

 রানীগঞ্জ বাজারের কূল ঘেষে বয়ে যাওয়া কুশিয়ারা নদীটি পাড়ীদিয়ে দক্ষিন পাড়ের অসংখ্য লোকজন প্রতিদিন রানীগঞ্জ বাজারে আসতে হয় । খেয়া নৌকাটিতে অসংখ্য মানুষের ভীর জমে ওঠে । বেশির ভাগ লোক জনই খেয়া নৌকা দিয়ে দু'কূল পাড়ী দেয়। এবং সপ্তাহের সোম বার এবং বৃহস্পতি বার লোক জনের সমাগম খুবই বেশী হয়। কারণ সোম বার এবং বৃহস্পতি বার হাট বার। হাট বারে রানীগঞ্জ বাজারে ঐতিহ্যবাহি গরুর হাট বসে। দূর দূরান্ত থেকে জনসাধারন গরু ক্রয় এবং বিক্রয় করতে আসে রানীগঞ্জ বাজারে। শুকনো মৌসুমে খুবই বেশী লোকের সমাগম হয়। 

 

রানীগঞ্জ বাজারের কূল ঘেষে বয়ে যাওয়া কুশিয়ারা নদীটি পাড়ীদিয়ে দক্ষিন পাড়ের অসংখ্য লোকজন প্রতিদিন রানীগঞ্জ বাজারে আসতে হয় । খেয়া নৌকাটিতে অসংখ্য মানুষের ভীর জমে ওঠে । বেশির ভাগ লোক জনই খেয়া নৌকা দিয়ে দু'কূল পাড়ী দেয়। এবং সপ্তাহের সোম বার এবং বৃহস্পতি বার লোক জনের সমাগম খুবই বেশী হয়। কারণ সোম বার এবং বৃহস্পতি বার হাট বার। হাট বারে রানীগঞ্জ বাজারে ঐতিহ্যবাহি গরুর হাট বসে। দূর দূরান্ত থেকে জনসাধারন গরু ক্রয় এবং বিক্রয় করতে আসে রানীগঞ্জ বাজারে। শুকনো মৌসুমে খুবই বেশী লোকের সমাগম হয়। 


Share with :

Facebook Twitter